|সর্বশেষ

6/recent/ticker-posts

Header Ads

technologyinfobd - সোনালী মুরগী পালন পদ্ধতি । সোনালি মুরগি পালনের সমস্ত তথ্য ২০২১

technologyinfobd - সোনালী মুরগী পালন পদ্ধতি

technologyinfobd - সোনালী মুরগী পালন পদ্ধতি । সোনালি মুরগি পালনের সমস্ত তথ্য ২০২১ 

সোনালি মুরগীর পরিচিতি : ১৯৯৬ - ২০০০ সাল পর্যন্ত জয়পুরহাটে গবেষণার মাধ্যমে সোনালি মুরগীর জাত এর উদ্ভাবন হয়। যিনি উদ্ভাবন করেন তার নাম হলো ডাঃ মোঃ শাহ জামাল। তিনি আর. আই. পি. জাতের মুরগীর সাথে ফাউমি মুরগীর মিশ্রণে সোনালি জাতের উদ্ভাবন করেন।

আজকের সূচি : 

সোনালী, ব্রয়লার,  সোনালীর পরিচর্চা,  সোনালি খামার করে লাভবান হওয়ার উপায় , সোনালি মুরগি পালনের সমস্ত তথ্য,  মুরগির খামার করার পদ্বতি, সোনালি মুরগির ওজন বৃদ্ধির উপায় ,  সোনালী মুরগীর আজকের বাজার দর, সোনালি খামার করে কোটিপতি ,  সোনালি মুরগি, সোনালী মুরগীর সেড নির্মান খরচ,  সোনালি মুরগির বাচ্চার দাম ২০২১ ,  সোনালি মুরগির ভ্যাকসিন সিডিউল,   সোনালি মুরগির বৈশিষ্ট্য , সোনালি মুরগির প্রজেক্ট ,  সোনালি মুরগি চেনার উপায়, সোনালি মুরগি পালন প্রশিক্ষণ, হাইব্রিড সোনালি মুরগি,  সোনালি মুরগি পালনের সমস্ত তথ্য ।

সোনালী মুরগীর বৈশিষ্ট্য :

 সুনালী মুরগীর গায়ের রং লাল,  লালের মাঝে কালো,  কালোর মাঝে সাদা ফোট ফোট,  কালো,  ব্রাউন ইত্যাদি বিভিন্ন রংয়ের হয়ে থাকে।

সোনালি মুরগীর পা লম্বা আকৃতির হয়ে থাকে। দৈহিক ওজন গড়ে ২ কেজির মতো হয়। ডিমের আকার ছোট। কৃিম কালারের ডিমের খোসা হয়ে থাকে বছরে ২০০-২৫০ টি ডিম দিয়ে থাকে।

                                        সোনালি মুরগি পালনের সমস্ত তথ্য ২০২১ 

সোনালি মুরগীর রাখার / বাসস্থান পরিচিতি :

 সোনালি মুরগীর খামার করতে হলে মাপ মতো ঘর তৈরি করতে হবে। প্রতিটি মুরগীর জন্য .৯০ বর্গফুট জায়গায় ঘর তৈরি করতে হবে। বেশী মুরোগ রাখা যাবেনা। জায়গা অনুযায়ী মুরগীর বাচ্চা ওটাতে হবে বেশী হলে রানিক্ষেত,  গামবোর আক্রমণ করবে এছাড়া টান্ডা লাগবে। ঘরের বেতরে বাঁশ বেধে দিলে ২০০ বেশী পালতে পারবেন। গরমের দিনে ঘরের চারপাশ খোলা রাখতে হবে এবং শীতের দিনে আলাধা পর্দা দিয়ে ডেকে রাখতে হবে। মুরগীর ঘর মজবুত করে তৈরি করতে হবে যাতে বন্যপ্রাণীর আক্রমণ থেকে বাচতে পারে। ঘরটি পূর্ব ও পশ্চিমে লম্বা থাকতে হবে। ঘর ২৫ ফুটের লম্বা করা ঠিক নয়। ঘর বাঁশ ও পাকা দিয়ে তৈরি করতে পারবেন সামর্থ্য অনুযায়ী।


সেড নির্মান খরচ :  

বিভিন্ন ভাবে সামর্থ্য অনুযায়ী আপনি ঘর তৈরি করতে পারবেন। তবে ১০০০ মুরগীর সেড তৈরির অনুমানিক একটি খরচ দেওয়া হলো নীচে : 

ঘরের পিলার ১৬টি খরচ - ৮০০০ টাকা

ঘরের কাঠ বাবদ খরচ -  ২০০০০ টাকা

ঘরের টিন বাবদ -   ২৫০০০ টাকা

সেড এর পর্দা বাবদ - ২৫০০ টাকা

সেড এর নেট - ১৫০০০ টাকা

সেড এর মুরগীর খাবার ও পানিরপাত্র - ৩৫০০ 

ইলেকট্রনিক বাবদ - ১০০০০ টাকা

সেড এর ওয়াল বাবদ - ১০০০০ টাকা 

মিস্ত্রি খারচ -   ৮০০০ টাকা 

মোট খরচ : ১০২০০০ টাকা মাত্র।


সোনালী মুরগীর পরিচর্যা : 

আপনি ১ দিন বয়সের সোনালির বাচ্চা সেডে আনলেন। বাচ্চার ব্রুডিং করতে হবে প্রতি ১০০ টি বাচ্চার জন্য নূন্যতম ১০০ ওয়াট এর একটি ইলেকট্রিক বাল্ব  দিয়ে গরমের দিন ৭ দিন শীতের সময় ১০ দিন তাপ দিতে হবে।

বাচ্চা সেড এ আনার পূর্বে সেড ভালো করে চুনের পানি দিয়ে ধুয়ে রাখতে হবে। ১ দিনের বাচ্চাকে প্রথম ২৪ ঘন্টা গ্লুকোজ মিশানো পানি খাওয়াতে হবে। পরে নিয়ম অনুযায়ী এন্টিবডি তৈরির জন্য এন্টিবায়োটিক ঔষধ দিতে হবে।

৩ বেলা পানি ও খাবার দিতে হবে। সেড এর নীচে ৩ ইণ্চি পরিমান পুরো করে কাঠেরগুড়ো বা ধানের গুড়ো দিয়ে মুরগীর হাটা বা গুমানোর জায়গা তৈরি করতে হবে। ৭ দিন পর পর কাঠেরগুড়ো পালটিয়ে দিতে হবে। ১০ দিন পর পর জিবানুনাশক দিয়ে স্প্রে করতে হবে।

সোনালীর জন্য বাশ বেধে দিতে হবে যাতে তারা এটির উপর বসতে পারে।


খাবার ও পানির পাত্র : 

প্রথম  দিন থেকে ১ মাস বয়স পর্যন্ত প্রতি ১০০ টির জন্য ১টি করে পানি ও খাবার পাত্র দিতে হবে।

দৃতীয় ধাপে : ১ মাস থেকে বিক্রি পর্যন্ত প্রতি ৫০ টির জন্য একটি করে পানি ও খাবার পাত্র দিতে হবে।

বাচ্চার ব্রুডিং ও তাপমাত্রা নির্ণয় : 

বাচ্চার ব্রুডিংয়ের সময় প্রতি ১০০ টি বাচ্চার জন্য একটি বাল্ব দিয়ে প্রথম সপ্তাহে ৩৫ ডিগ্রি  এবং পরে শীত ও গরম অনুযায়ী কমবেশি হবে।

মুরগীর লিটার ও রোগ : 

সোনালী,  ব্রয়লার, কক,  দেশী যাই পালেন না কেনো লিটার পরিষ্কার ও পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। লিটার বেশী পাতলা বা ঘনো করা যাবেনা। 

শীতে দুই ইন্চি এবং গরমে এক ইন্চি রাখলে ভালো হয়। লিটার ভিজা হলে মুরগীর শ্বাসকষ্ট,  গামবোর, রানীক্ষেত হতে পারে। লিটার শুকনো থাকলে মুরগীর ওজন বাড়ে ঔষধ ছাড়াই। 

সোনালী মুরগীর টিকা : 

১-৩ দিন বয়সে - I.B. & N.D

৭-৮ দিন বয়সে - রানীক্ষেত

১১-১৩ দিন বয়সে - গামবোর

১৫-১৭ দিন বয়সে - রানীক্ষেত

২১-২৩ দিন বয়সে - টোঠ ছেকা

২৫-২৮ দিন বয়সে - গামবোর

৩৫ দিন বয়সে - পক্স

৪০ দিন বয়সে - কৃমিনাশক 

১ দিনে রানীক্ষেত এর লাইভ দিলে ৪০ দিনে আর রানিক্ষেত এর লাইভ দিতে হবেনা। বেশী টোকরাটুকরি করলে টোট ছেকা দিতে হবে। 


১০০০ মুরগীর খাবার ও বাচ্চার মূল্য : 

সোনালীর বাচ্চার রেট ওটানামা করে। ১ দিন বয়সের বাচ্চা ১২ টাকা থেকে শুরু করে ৩৫ টাকা পর্যন্ত থাকে। আপনি যতো কম দিয়ে কিনতে  পারেন আপনার লাভ। ধরে নেই ১৫ টাকা তাহলে ১০০০ এর মূল্য হলো ১৫০০০ টাকা।

খাবার, ১০০০ সোনালী মুরগী খাবে সোনালী স্টাটার,  গ্রোয়ার ও ফিনিশার ৪০ বস্তা যার বাজার মূল্য বর্তমানে  ৮৫০০০ টাকা।

মোট বাচ্চা ও খাবার মূল্য - ৮৫০০০ টাকা। 


সোনালীর ওজন ও বয়স : 

সোনালী মুরগী সাধারনত ৪৫ - ৬০ দিন বয়সে বিক্রি উপোযোক্ত হয়। ১০০০ মোরগী খাবে ৪০ বস্তা খাবার ওজন আসবে ৮০০ - ৯০০ গ্রাম। প্রতি ২.২ কেজি খাবারের জন্য ওজন হয় ৮০০ গ্রাম। 

ভালো ওজন পেতে ব্রয়লার ও সোনালী মিক্স খাওয়ালে ভালো ওজন আসে।

লাভ - ক্ষতি : 

এবার আসি মূল কথায়,  সকলে লাভের জন্যই সোনালী পালে তাই দেখে নেই লাভ হয় না লস হয়।

লাভ - লস নির্ভর করে দাম এর উপর। দাম বেশী হলে লাভ ও বেশী হয়। দাম কম হলে লস হয়। সাধারনত সোনালীর রেডি মুরগীর বাজার থাকে ১৭০-২৫০ টাকা পর্যন্ত। সুতরাং বুঝতেই পারছেন লাভ এবং লসের কেমন তারতম্য হতে পারে। ১৯০ টাকা ধরে আমরা আজ লাভ - লস হিসাব করবো। ৮০০ গ্রাম ওজনের মুরগী আমাদের আছে ধরেন ১০০০ এর মধ্যে মারা যাওয়া পরে ৯৫০ টি তাহলে মোট ওজন হলো ৯৫০*. ৮ = ৭৬০ কেজি। 

১৯০ টাকা ধরে মোট বিক্রি হলো = ১৪৪০০০ টাকা।

মোট খরছ হলো বাচ্চা,  খাবার বাবদ = ৮৫০০০ টাকা সাথে ঔষধ বাবদ - ৫০০০ টাকা। মোট হলো ৯০০০০ টাকা

মোট লাভ হলো - ১৪৪০০০ - ৯০০০০ = ৫৪০০০ টাকা।

আমার দেয়া তথ্যমতে সোনালী পালন করলে লাভ হবে ১০০% গ্যারান্টি সহ বলছি।


এবার আসি লাভ না হওয়ার কারন জানি : 

কম জায়গায় বেশী মুরগী পালন।

বাজার ওটানামা করা।

ভালো মানের বাচ্চা না ওটানো।

টিকমত পরিচর্চা না করা।

খাবার নষ্ট করে মুরগী ফেলে দেয়া।

খাবারের মান ভালো না থাকা।

রোগ না বোঝে ঔষধ খাওয়ানো।

অধিক পরিমান এন্টিবায়োটিক ব্যাবহার করা।

ওজন ঠিকমতো না আসা।

ঘর টিকমতো তৈরি না করা।

আলোবাতাস ঘরে প্রবেশ না করা।

সঠিক সময়ে ঠিকা না দেয়া।

দক্ষ লোকের অভাব।

পরিশেষে বলতে পারি দক্ষ লোক ও সঠিক নিয়মে মুরগী পালন করলে লাভ ছাড়া লস হওয়ার কথা নয়। লাভ হয়তো বেশী হবে না কিন্তু কম হবেই।  সোনালি মুরগি পালনের সমস্ত তথ্য ২০২১ দেয়া হল ।

আজ আর নয় দেখা হবে অন্য পোস্টে সে সময় পর্যন্ত ভালো থাকুন এবং সাথে থাকুন। ধন্যবাদ 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ